ফিরাক: মুভি রিভিউ

image-ফিরাক: মুভি রিভিউ

নন্দিতা দাশের অভিনয় দেখে মুগ্ধ হন নি, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। কঠিন কঠিন চরিত্রে সাবলীল অভিনয় করে তিনি সবসময় দর্শকের মন জয় করে নিয়েছেন৷ ছবিও করেছেন খুব বেছে বেছে। তাই, তাঁর পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র নিয়ে প্রত্যাশা ছিল পাহাড়সমান। "ফিরাক" একদম সাধারন মানুষদের জীবনের কাহিনী। পুরে ছবিটি গুজরাটে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধার এক মাস পর সেখানকার চারটি পরিবারকে ঘিরে। একদিকে আছে মধ্যবিত্ত গুজরাটি এক হিন্দু পরিবার- যেই পরিবারের পুরুষেরা দিনেদুপুরে মুসলিমদের দোকান লুট করছে, মেয়েদের ধর্ষণ করে এসে সেটা নিয়ে গল্প করছে। আবার একই পরিবারের আরেক সদস্য, আরতি নিজের অনুতাপে তিলে তিলে পুড়ছে। একদিন ঘটনাচক্রে তার কাছে আসে মুহসিন নামের এক শিশু, যার পুরো পরিবারকে তার চোখের সামনে হত্যা করা হয়েছে। মুহসীনকে আশ্রয় দাওয়ার মধ্যে দিয়ে আরতির মধ্যে গড়ে উঠে এক নতুন স্বত্তা, সে তার দেবর ও স্বামীর অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে শুরু করে। কাহিনী মোড় নেয় হানিফ আর তার স্ত্রী মুনিরার সংসারে, যারা দাঙ্গার পর বস্তিতে ফিরে এসে দেখে যে তাদের সবকিছু পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ছবিতে আরো আছে এক হিন্দু-মুসলিম দম্পতি, যারা উচ্চবিত্ত হওয়া সত্ত্বেও শহর ছেড়ে পালাচ্ছে প্রানের ভয়ে। ছবিতে সবচেয়ে শক্তিশালী চরিত্রে আছে নাসিরুদ্দিন শাহ, যে এখনও বিশ্বাস করে মানবতার জয় হবে- একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু, সত্যিই ঠিক হবে কি? সবার পরিনাম জানতে হলে দেখতে হবে এই অসাধারন সিনেমাটি। কাহিনীর গভীরতা আর অসাধারন অভিনয়ের কারণে মনেই হবে যেন চোখের সামনে সত্যি সত্যি এসব ঘটছে। ছবিতে প্রচুর ভায়োলেন্স আছে, আরো আছে প্রচুর হৃদয়বিদারক দৃশ্য। তাই দুর্বলচিত্তের অধিকারীরা এই ছবিটি না দেখাই শ্রেয়।

Comments • 0